শারদ সম্ভার সাথে নিয়ে ইয়গা -মেডিটেশন

সবাইকে জানাই শারদীয়ার প্রীতি ও শুভেচ্ছা। মা দূগা আমদের মাঝে এসে গেছেন,তাই মাকে বরণ করতেই আমাদের এ বাড়ের ইয়গা মেডিটেশনের বিশেষ আয়োজন। কারন সবকিছুই দেহ ও মনকে ঘিরে, দেহ ও মন ভাল রাখতে যোগব্যায়াম আবশ্যক । আর এ থেকেই তো পাওয়া যাবে, অনন্দময় ও কর্ম ব্যস্ত সুখী জীবন।
ব্যায়াম করা যে কত ভাল তা আমরা সবাই জানি, কিন্তু হয়ে ওঠে না ব্যাস্তার জন্য।শরীরের সুস্থতার পাশাপিশি ত্বকের সুস্থতা ও কিন্তু নির্ভর করে ব্যায়ামের উপর।
ব্যায়ামের ও যোগ আসনের মাধ্যমে আপনি পেতে পারেন সতেজ ও সুস্থ ত্বক। আসুন জানি ব্যায়াম থেকে কি কি পরিবর্তন আসেঃ

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফিজিক্যাল মেডিসিন ও রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সহেলী রহমান বলেন, “ব্যায়ামের ফলে শরীরে প্রতিটি কোষে রক্ত চলাচল বাড়ে এর ফলে প্রতিটি কোষে পৌঁছে যায় প্রয়োজনীয় পুষ্টি ও অক্সিজেন।
ত্বকের কোষে এ প্রয়োজনীয় উপাদানগুলো পৌঁছানোর ফলে ত্বক সতেজ হয়ে ওঠে।“
ত্বক পুষ্টি উপাদান পৌঁছানোর ছাড়া ও নানা উপকার পয়া যাবে নিয়মিত ব্যায়ামেঃ

১/নিয়মিত ব্যায়ামের ফলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ে ।
২/ ব্যায়াম মানসিক চাপ দূরে রাখতে সাহায্য করে। ব্যায়ামের ফলে শরীর ক্লান্ত হয়।আর ফলে ভাল ঘুম হয়।মানসিক চাপ কমলে ও ভাল ঘুম হলে ত্বক সজীব হয়।
৩/ব্যায়ামের ফলে কিছু হরমোন নিঃসরণ হয়। এর প্রভাবে ত্বকের তেল রক্ষণকারী গ্রন্থিগুলোর কাযকারিতা কমে।ফলে ত্বকের তেল চিটচিটে ভাব দূর হয়।
৪/মাংসপেশী সবল হলে ত্বকের টোনিং হয়ে ওঠে চমৎকার।
৫/ ত্বকের বিভিন্ন কোষে স্বাভাবিক প্রক্রিয়া কিছু বর্জ্য পদার্থ তৈরি হয়।রক্ত চলাচল বৃদ্ধির ফলে এ গুলি সহজে বেরিয়ে যেতে পারে। এ সব পদার্থ বেশি থাকলে ত্বক বিভিন্ন ধরনের সংক্রমণ হয়ার আশংকা বেড়ে যায়।
ব্যায়ামের ফলে ত্বক ভেতর থেকে পরিষ্কার রাখা সম্ভব। ত্বকের যে সব গ্রন্থি ঘাম নিঃসরণ করে ,ব্যায়ামের কারণে সেগুলো কার্‍্যকর হয়ে থাকে।
কোন ব্যায়ামে কেমন উপকার পাওয়া যায়, এ ব্যাপারে জানালেন পারসনা হেলথের প্রধান প্রশিক্ষক ও এনচার্জ ফারজানা খানম——
কার্ডিও এক্সারসাইজ ও অ্যারোবিক ট্রেডমিল বা সাইক্লিংয়ে শরীরের রক্ত চলাচল বাড়ে, ফলে ত্বক উজ্বল দেখায়। তাই যিনি এমন ব্যায়াম করেন , তিনি স্বাভাবিকভাবেই পযাপ্ত পানি পান করেন। ফলে ত্বক সতেজ থাকে। বিভিন্ন অ্যারোবিক এক্সারসাইজের ফলে ত্বকের নিচের রক্তনালীগুলোর কার্‍্যকারিতা বাড়ে।কার ও হরমনজনিত সমস্যার কারণে ওজন বেড়ে যায়, ত্বকে ব্রণ দেখা দেয় এবং মাসিক অনিয়মিত হয়। ইয়গা মেডিটেশের ফলে এ সব কিছু আস্তে আস্তে কমে যায়।
ওয়েট লিফটং ————
বয়সের কারণে ত্বকে বলিরেখা পড়ে। বিভিন্ন ধরনের ভারোত্তোলন ব্যায়ামের(ওয়েট লিফটং) ফলে ত্বকে ব্লি রেখা কম পড়ে । বয়স বাড়ার সঙ্গে সংগে ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা হারাতে থাকে। আর ফলে ত্বক ঝুলে পড়তে দেখা যায়। এ ধরণের ব্যায়াম করার ফলে ত্বকে ঝুলে থাকার ভাবটা থাকে না। বরং দারুণভাবে ত্বকের টোনিং হয়।
এ ধরণের ব্যায়ামে শরীর খুব ক্লান্ত হয়, ফলে ভাল ঘুম হয়। অনিদ্রার ফলে চোখের নিচে কালি পড়া, ত্বকের উজ্জলতা কমে যাওয়াসহ নানান সমস্যা হয়ে থাকে। ওয়েট লিফটং করলে এ সমস্যাগুলি এড়ানো যায়।
ঘরের বাইরে ব্যায়াম—–
পরিচ্ছন্ন বাতাসে ব্যায়াম করতে পারলে তা মনকে সতেজ করে তলে।একই সঙ্গে বাড়ে ত্বকের সজীবতা।
ফেসিয়াল এক্সারসাইজ—
মুখের বিভিন্ন মংসপেশীর নির্দিস্ট কিছু ব্যায়াম রয়েছে।
নিয়মিত এ ব্যায়াম গুলো করার ফলে মুখের ত্বকের টোনিং হয়। তা ছাড়া এ ব্যায়ামের ফলে মুখের ত্বকের লমকূপগুলো খূলে জায়,ফ্লে ঘাম বের হতে পারে। এধরনের ব্য্যামের পর বারবার মুখে পানির ঝাপ্টা দিলে মুখের ত্বক পুরোপুরি পরিস্কার হয়ে যায়।
ওয়েট লিফটং———
শরীরের বয়সের সঙ্গে সঙ্গে ত্বকের বয়স তো বাড়বেই। তবে ত্বকে বয়সের ছাপ না চাইলে শিখতে পারেন যোগব্যায়াম।এতে মানসিক চাপ ও কমে। শ্বাস-প্রশ্বাসের সঙ্গে নানান রকম দেহভঙ্গির সমন্বয়ে ত্বক সতেজ ও উজ্জল হয়, ত্বকের স্থিতিস্থাপকা বাড়ে এবং ত্বকে বলিরেখার ছাপ পড়ে না। নিয়মিত ফিসিয়াল করলে যে উপকার হয়, নিয়মিত যোগব্যায়াম করলে এ র চেয়েও বেশি উপকার পাওয়া যায়।
তাই নিয়ম করে প্রতিদিন এক ঘন্টা করে যোগব্যায়াম করুন, এক ঘন্টা এ ভাবে ভাগ করুন খুব সকালে ৩০মিনিট আর সন্ধ্যায় ৩০মিনিট, এ ভাবে করলে আপনি ভীষণভাবে উপকার পাবেন।আর যদি মনে করেন খুব ভোরে অভ্যাস করবেন তাহলেও হবে,প্রথমে ১৫ মিনিত,৩০ মিনিট, ৪৫ মিনিট আর এ ভাবে আস্থে আস্থে সময় বাড়িয়ে ১ ঘণ্টায় নিয়ে যাবেন।আমরা সকলেই বিভিন্ন কাজে খুব ব্যস্থ থাকি তা ঠিক,কিন্তু জানেন ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়।আমরা প্রতিদিন যেমন তিনবার করে খাওয়া দাওয়া করি ঠিক সেভাবেই যোগব্যায়াম করা সম্ভব। যোগব্যায়ামের জন্য বাবা রাম দেব এর যোগব্যায়াম নিয়মগুলি খুব সুন্দরভাবে দেখে দেখে খুব সহজেই শেখা যায় ,আর সপ্তাহের সাত দিনের জন্য সাত রকম ব্যায়ামের বিষয়ে বাবা সুন্দর করে উপস্থাপন করেছেন। ইয়উ টিউব এ গেলে বাবা রাম দেবের অনেক ভিডিও দেখে ডাউনলোড করতে পারবেন।
আর যোগ আসন ও প্রাণায়াম করুন সূর্য দ্বয়ের ঠিক আগে।
সকালে ঘুম থেকে ওঠে মেডিটেস্ন,তার পর ঘুম থেকে ওঠে হালকা গরম জ্বলে মধু মিশিয়ে পান করুন। আর খাবার যখনই খান ভাল ভাবে চিবিয়ে খান।তাহলে হজমের কোন সমস্যা হবে না।খালে পেটে রাতে ভেজানো বুট /ছোলা সকালে খালি পেটে খাওয়াটা স্বাস্থের জন্য দারুন ফলদায়ক।
আজ এখানেই রাখছি,আর যোগব্যায়াম সম্পর্কিত পোস্ট পেতে আমাদের সাইট আমাদের সাথে থাকুনএর সাথে থাকুন ও ভিজিট করুন। শারদ সম্ভারের এ শুভ লগ্নে সবার জীবন পরিপূন্য পবিত্রতায় , সুখ-সমৃদ্ধিতে ও আত্মিক বন্ধনে পূর্ণতা লাভ করুক।
The following two tabs change content below.
আসুন সবাই মিলে ইয়গা-মেডিটেশন করি,মন থেকে অশুভ সব মুছে ফেলে এ সুন্দর পৃথিবীটাকে ভালবাসাই আরও সুন্দর করে তুলি
About ইয়গা সঞ্জিতা(Yoga Sanjita)

আসুন সবাই মিলে ইয়গা-মেডিটেশন করি,মন থেকে অশুভ সব মুছে ফেলে এ সুন্দর পৃথিবীটাকে ভালবাসাই আরও সুন্দর করে তুলি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

* Copy This Password *

* Type Or Paste Password Here *

122 Spam Comments Blocked so far by Spam Free Wordpress