women's power

Women’s strength and development

নারীরা আজ বিশ্বজয়ী ঃ

নারীরা আজ আর নেই পিছিয়ে। কর্মক্ষেত্রে নারীরা পুরুষের সঙ্গে সমানতালে পা চালিয়ে তারা হয়েছেন প্রশংসানীয়। রাজনীতি,জ্ঞান-বিজ্ঞান,শিক্ষা,স্বাস্থ্য, ব্যবসা,খেলাধুলা সর্বত্রই তারা প্রতিনিয়ত নিজেদের প্রমান করেছেন। আমাদের এ বারের লেখা বিশ্বের এমন সব জয়ী নারীদের নিয়ে।
আমাদের আজকের আয়োজন সেসব নারীদের নিয়ে যারা জীবনের শত কঠিন পরিস্থিতির মধ্যেও নিজেকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন।
১। বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারীঃ জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারী হিসাবে স্বীকৃত ও প্রতিষ্ঠিত। আন্তর্জাতিক মিডিয়াগুলোর নানা জরিপে বারবারই তার নাম থাকছে প্রভাবশালী নারী রাজনীতিবিদ হিসাবে। ২০১৫ সালের দিকে ফোবস ম্যাগাজিনের বিবেচনায় বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারী তিনি। বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ অর্থনীতি ও সামরিক সুসজ্জিত দেশের চ্যান্সেলর হিসাবে তিনি বিশ্ব রাজনীতিতে অন্যতম গুরুত্তপূর্ণ ব্যাক্তিত্ব। বিশ্ব রাজনীতির পালাব্দলে তার দূরদর্শী সিদ্ধান্ত ইতিমধ্যে আন্তর্জতিক পরিমণ্ডলে প্রশংসা কুড়িয়েচে।ক্ষ্মমতাধর রাজনীতিবিদ এই মানুষটি এখনো সাধারণ জীবন-জাপ্নে অভ্যস্থ। এখনোও সেলুনে গিয়ে অন্যদের মত চুল কাটান, কোন বিশেষ ছাড় তিনি নেন না। জার্মানির রাজধানী বার্লিনের ‘মিউজিয়াম আইল্যান্ড’ আর আক্টি জাদুঘরের কাছে নিজস্ব একটি পুরানো ফ্ল্যাটে থাকেন তিনি।শুধু নিরাপ্ততার জন্য দুজন পুলিশ বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে থাকে। এখনো ও মেরকেল সাধারণ সুপার মার্কেটেই বাজার করতে যান।

২।বিশ্ব চমকে শেখ হাসিনাঃ
বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণত্ম রাজনীতিবিদদের আকজন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।তিনি তিন তিন বার প্রধানমন্ত্রী পদে নির্বাচিত হ্যেছেন.১৯৮১ সাল থেকে বাংলাদেশের রাজনীতিতে রেখেছেন সাফল্যের সুদীর্ঘ স্বক্ষর।সিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপ্তি ও দশম জাতীয় সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেত্রী।সিনি বাংলাদেশ সরকারের প্রথম রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের জাতির জঙ্ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় মেয়ে। এত দীর্ঘ সময় একটি দলের দায়িত্ব এবং বার বার প্রধানমন্ত্রী ও সংসদে বিরোধীদলীয় নেত্রী হিসাবে নির্বাচিত হ্যে বিশ্বে চমক সৃষ্টি করেছেন। জিডিপির বর্ধমান ধারা অব্যাহত রাখা অর্থনীতিতে দৃঢ় অবস্থান তৈরীতে তার ভূমিকা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রশংসিত। নারী অধিকার নিশ্চিত করা, মাতৃ মৃত্যুহার ও শিশু মৃত্যুহার রোধ করে তিনি বিশ্বব্যাপী অনেক সুনাম কুড়িয়েছেন।পরিবেশ রক্ষায় জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে তিনি বিশ্বনেতাদের একজন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১০ সালের দিকে,নিউইয়র্ক টাইম্‌স সাময়িকির অনলআইন জরিপে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ১০ নারীর মধ্যে ষষ্ঠ স্থানে ছিলেন,যা আমাদের সেশের জন্য অত্যান্ত সম্মানের। ২০১৪ সালে সুমুদ্রসীমা জয়ের জন্য তিনি সাউথ সাউথ পুরষ্কার লাভ করেন।
এছাড়াও তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে অনন্য অবদানের জন্য আইসিটি টেকসই উন্নয়ন পুরস্কার লাভ করেন।

৩।টেক বিশ্বে সেরা নারী উদ্যোক্তাঃ
তাইওয়ানের স্মার্ট ফোন ও ট্যাবলেট কম্পিউটার নির্মাতা হাইটেক কম্পিউটার(এইচটিসি)কর্পোরেশনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শের ওয়াং ।তিনি টেক বিশ্ব সেরা উদ্যোক্তা।আবার তিনি প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাও। শের ওয়াং তাইওয়ানের কম্পিউটার প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ফাস্ট ইন্টারন্যাশসনাল কম্পিউটার ১৯৮২ সালে যোগ দিয়ে নিজের পেশা জীবন শুরু করেন।

৪।যার গানে মাতোয়ারা
অ্যালিসিয়া আওজেলো কুক ভক্তদের কাছে পরিচিত অয়ালিসিয়া কিজ নামে।তিনি আমেরিকার গীতিকার, চিত্রক্র অ আকাধারে অভিনেত্র। ১৯৮১ সালে জন্ম গ্রহণ করা এই গুণি নারীর র‍য়েছে দারুন খ্যাতি। তিনি একক ও ডুয়েট গানে সমান জনপ্রিয়.২০১৬ সালে রিলিজ পাওয়া অ্যালবাম ‘হিয়ার’ হিফপ টপ লিস্তে সপ্তম হয়।

৫। এভারেস্টকন্যা
এভারেস্টজয়ী অন্যান্য নারীর চেয়ে লাখপা শেরপা এগিয়ে। এ পর্যন্ত তিনি সাতবার মাউন্ট এভারেস্টকে জয় করেছেন।বিশ্বের আর কোন নারী এভারেস্টের চূড়ায় নিজের পদচিহ্ন রাখতে পারেনি।তিনি প্রথম নেপালী নারী হিসাবে ২০০০ সালে এভারেস্টের চূড়ায় ওঠেন এবং স্ফলতার সঙ্গে নেমে আসেন.২০১৬ সালে তিব্বত হয়ে মাউন্ট এভারেস্টে ওঠা ছিল সপ্তম বারের মত।
৬। যুদ্ধ সাংবাদিক
পৃথিবীর ইতিহাসে প্রথম যুদ্ধের খবর সংগ্রহকারী নারী মার্গারেট ব্রুক হোয়াইট। তার সাহসিকতা প্রকাশের আগে ঝুঁকিপূণ সংবাদ সংগ্রহ কেব্ল পুরুষদেরই যোগ্য মনে করা হতো।কিন্তু হোয়াইট মানুষের বদ্ধমূল ধারণাকে গুঁড়িয়ে দেন।তিনি ছিলেন প্রথম ফটোগ্রাফার, যাকে সোভিয়েত ইউনিয়নের ভেতরকার ছবি তোলার আনুমতি দেওয়া হয়েছিল।পাক-ভারত বিভাজের সময় তার তোলা অনেক বিখ্যাত ছবি এখনো ও রয়েছে।

৭।সাইকেল বিপ্লবী নারীঃ
২০১৬ সালে আমনা সোলাইমান একাই নারী সাইকেলিং ক্লাবের নেতৃত্ব দেন।ফিলিস্তিনের জাবলিয়া রিফিউজি ক্যাম্পে থেকে এই শরণার্থী আলাকার নারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও যতায়াতের সুবিধার জন্য সাইকেলিংকে সমর্থন দিয়ে আসছেন।
৮।তারকা কৌতুকভিনেত্রীঃ
বিশ্বের সেরা কৌতুকভিনেত্রী আমেরিকান অ্যামি স্কিউমার।লেখিকা ও প্রযোজক হিসেবেও তিনিই প্রিচিত।তার ইনসাইডার অ্যামি স্কিউমার ২০১৩ সালের কমেডি সিরিয়াল হিসাবে পিবডি পুরস্কার লাভ করেন।অথচ এই অভিনেত্রীই ক্যারিয়ারের শুরুতে ছিলেন চরমভাবে বিফ্ল।কেউ কি তখন ভেবেছিলেন বার বার হেরে যাওয়া এই অভিনেত্রী মানুষ হাসাতে বিশ্বের সেরা ওস্তাদ হবেন?
৯।
অপেরা উইনফ্রে অনুপ্রেরণীয় ব্যক্তিতবঃ
অপেরা গেইল উইনফ্রে একজন জনপ্রিয় মার্কিন টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব। টকশোর উপস্থাপিকা হিসাবে তিনি ১৯৮০ –এর দশকের মধ্যভাগ থেকে বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন ক্রেন।তিনি অপেরা নামেই সমধিক পরিচিত। একই সঙ্গে তিনি একজন মানবহিতৈষী ও গণমাধ্যম ধনকুবের।বিস্তৃত টকশো ‘দ্য অপেরা উইনফ্রে শো’ তাকে একাধিক অ্যামি অ্যাওয়ার্ড এনে দিয়েছএই শো টেলিভিশনের ইতিহাসে আন্তর্জাতিকভাবে সবচেয়ে বেশি প্রচারিত বলে গণ্য ।নিজে ম্যাগাজিন প্রকাশের পাশাপাশি একজন শক্তিমান সাহিত্যসমালোচক এবং একাডেমী অ্যাওয়ার্ড মনোনীত অভিনেত্রী।
১০।
আইরিন রজেনফেন্ড ধনী সিইওঃ
স্নাকস ও চকলেট উতপাদক জায়ান্ট কর্পোরেশন ইন্টারন্যাশনালের চেয়ারম্যান ও সিইও আইরিন রজেনফেন্ড। গত ত্রিশ বছর ধরে তিনি ফুড অ্যান্ড বেভারেজ শিল্পের সঙ্গে আছেন। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহতম ফুড কোম্পানি ক্রাফটস ফুডসের চেয়ারম্যান ও সিইও হিসাবে আইরিন রজেনফেন্ড তার কর্মদক্ষতা নিয়ে শীষে অবস্থান করছেন। ২০০৯ সালে তিনি ক্রাফটসকে পরিবর্তন করে আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল গ্রুপের ডো জনেস ইন্ডাস্ট্রইয়ালে পরিণত করে। বর্তমানে রজেনফেন্ড বার্ষিক বেতন ১৯.৩ মিলিয়ন ডলার।

১১।
ডাইন গ্রিন প্রযুক্তিবিদঃ ডাইন গ্রিন বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারী ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে পর্রিছিত।তিনি গুগল ক্লাউড ব্যবসার প্রধান হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এখান থেকে আমরা পরিষ্কার দেখতে পারছি যে, নারীরা আর ঘরের কোনে বসে নেই,তারা নিজ নিজ ক্ষেত্রে তাদের মেধা ও প্রভাকে কাজে লাগিয়ে সমান তালে পা মেলাছেন পরুষের সাথে। নারীদের জীবন আজ রান্না-বান্নার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই। তারা তাদেরকে প্রমান করে দেখেয়েছেন যে, তারা ও সমানভাবে অবদান রাখতে পারে বিশ্বের উন্নয়ন কল্পে।

The following two tabs change content below.
আসুন সবাই মিলে ইয়গা-মেডিটেশন করি,মন থেকে অশুভ সব মুছে ফেলে এ সুন্দর পৃথিবীটাকে ভালবাসাই আরও সুন্দর করে তুলি
About ইয়গা সঞ্জিতা(Yoga Sanjita)

আসুন সবাই মিলে ইয়গা-মেডিটেশন করি,মন থেকে অশুভ সব মুছে ফেলে এ সুন্দর পৃথিবীটাকে ভালবাসাই আরও সুন্দর করে তুলি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

* Copy This Password *

* Type Or Paste Password Here *

121 Spam Comments Blocked so far by Spam Free Wordpress